হারিয়ে যাওয়া মেধাবী গীতিকার নজরুল ইসলাম বাবু

হারিয়ে যাওয়া মেধাবী গীতিকার নজরুল ইসলাম বাবু

।। ফজলে এলাহী ।।

সব কটা জানালা
খুলে দাও না
আমি গাইবো গাইবো
বিজয়েরই গান…..

সাবিনা ইয়াসমিনের কণ্ঠের অসাধারন এই দেশাত্মবোধক গানটি শুনেনি এমন বাংলা গানের শ্রোতা খুঁজে পাওয়া যাবে না। কিন্তু সেইসব শ্রোতাদের যদি জিজ্ঞেস করেন, গানটির গীতিকার কে? তাহলে দেখবেন ৯৫% শ্রোতাই সঠিক ভাবে নাম বলতে পারবে না। এটা শ্রোতাদের দোষ নয়, দোষ আমাদের, আমরা যারা এমন সব মেধাবী মানুষগুলোর সৃষ্টি ও কর্ম সম্পর্কে আজ পর্যন্ত কোন তথ্যভাণ্ডার শ্রোতাদের দিতে পারিনি।

এবার মূল কথায় আসি। আপনি যদি স্বাধীন বাংলাদেশের গত শতাব্দীর গানের ভাণ্ডারের রত্নগুলোর সন্ধান পেয়ে থাকেন তাহলে আপনি অবশ্যই অবশ্যই নজরুল ইসলাম বাবু নামের একজন মেধাবীর সন্ধান পেয়ে যাবেন। কারণ গানের ভাণ্ডারে থাকা অনেক দারুন দারুন গান যে ঐ মেধাবী মানুষটির লিখা যা দিয়ে অনেকে কণ্ঠশিল্পী হয়েছেন চিরস্মরণীয় ও বরণীয় কিন্তু ঐ মেধাবী রয়ে গেছেন আজও অনেকের জানার বাহিরে ।

গীতিকার নজরুর ইসলাম বাবু ১৯৪৯ সালের ১৭ই জুলাই জামালপুরের মাদারগঞ্জ উপজেলায় চরনগর গ্রামে মাতুলালয়ে জন্মগ্রহণ করেন। তার পৈত্রিকভিটা একই উপজেলা হেমাড়াবাড়ি গ্রামে। পিতা বজলুল কাদের, মাতা রেজিয়া বেগম। পিতা বজলুল কাদেরের সঙ্গীতানুরাগ ছোটবেলা থেকেই বড় সন্তান নজরুল ইসলাম বাবুকে প্রভাবিত করে। স্কুল জীবন থেকেই তিনি সাহিত্য চর্চার পাশাপামি সক্রিয়ভাবে রাজনীতির সাথে যুক্ত ছিলেন। ১৯৭০ সালে তৎকালীন সরকার তার উপর গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করলে তিনি আত্মগোপন করেন এবং ১৯৭১ সালে ভারতে চলে যান। ট্রেনিং শেষে দেশে ফিরে দেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন। দেশ স্বাধীন হলে তিনি আবার লেখাপড়া, সাহিত্য ও সংগীত চর্চা শুরু করেন। ১৯৭৩ সালে আশেক মাহমুদ কলেজ থেকে বিএসসি ডিগ্রী লাভ করেন।

১৯৭৩ সালেই তিনি বাংলাদেশ বেতার ও বাংলাদেশ টেলিভিশনে গীতিকার হিসাবে তালিকাভুক্ত হন। এরপর একে একে লিখতে থাকেন দারুন সব গান, যার মধ্যে ‘সব কটা জানালা / খুলে দাও না’ গানটি অন্যতম। এই গানটি তৎকালীন বাংলাদেশ টেলিভিশনের বাংলা ও ইংরেজি সংবাদের আগে আবহ সঙ্গীত হিসেবে সংবাদের টাইটেলে প্রচার করা হতো কখনও সাবিনা ইয়াসমিনের কণ্ঠে আবার কখনও শুধু বাদ্যযন্ত্রে। গানটির সুরকার ছিলেন আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল ।

পরবর্তীতে এই গানটি চিত্র পরিচালক কাজী হায়াত ১৯৯২ সালে ‘সিপাহী’ ছবির টাইটেলেও ব্যবহার করেছিলেন । এই গানটি ছাড়াও নজরুল ইসলাম বাবু’র লিখা ‘একটি বাংলাদেশ / তুমি জাগ্রত জনতার’, ‘আমায় গেঁথে দাও না মাগো/ একটা পলাশ ফুলের মালা’ দেশাত্মবোধক গানগুলোও আজও বিভিন্ন জাতীয় দিবসে গাওয়া হয়।

বাংলাদেশ টেলিভিশনে প্রচারিত প্রয়াত চিত্রনায়ক ও কণ্ঠশিল্পী জাফর ইকবালের কণ্ঠের ‘সুখে থাকো , ও আমার নন্দিনী’ গানটি জাফর ইকবালকে দেয় কণ্ঠশিল্পী হিসেবে ব্যাপক জনপ্রিয়তা যা আজও শ্রোতাদের মুখে মুখে ফিরে যার সুরকার ও সঙ্গীত পরিচালক ছিলেন আলাউদ্দিন আলী। শুধু জাফর ইকবালই নন, কণ্ঠশিল্পী দিলরুবা খানের কণ্ঠের ঝড় তোলা ‘দুই ভুবনের দুই বাসিন্দা’ গানটিও নজরুল ইসলাম বাবুর লিখা ।

তিনি বাংলাদেশ গীতিকবি সংসদের প্রথম কার্যনির্বাহী পরিষদ (১৯৭৮-৭৯) এর সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন। ১৯৭৮ সালে সুরকার আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুলের সাথে তিনি প্রথম চলচ্চিত্রে গান লিখতে শুরু করেন। মোস্তফা আনোয়ার পরিচালিত ‘আঁখি মিলন’ ছবির ‘আমার গরুর গাড়িতে বউ সাজিয়ে’, ‘কথা বলবো না, বলেছি’ গানগুলো আজও শ্রোতাদের কাছে জনপ্রিয় হয়ে আছে।

চলচ্চিত্রে নজরুল ইসলাম বাবুকে আমরা পেয়েছি ‘দুই পয়সার আলতা’, ‘মহানায়ক’, ‘প্রতিরোধ’, ‘উসিলা’, ‘পদ্মা মেঘনা যমুনা’, ‘প্রেমের প্রতিদান’ এর মতো দারুন সব চলচ্চিত্রের দারুন দারুন সব গানে।

শুধু বাংলাদেশের সাবিনা, রুনা,সুবির নন্দী, অ্যান্ড্রো কিশোরের মতো শিল্পীদের কণ্ঠে নয় বাবুর লিখা গান আছে কুমার শানু, আশা ভোষলে, হৈমন্তী শুক্লার মতো উপমহাদেশের জনপ্রিয় ও কিংবদন্তীতুল্য শিল্পীদের কণ্ঠেও।

১৯৯১ সালে ‘পদ্মা-মেঘনা-যমুনা’ চলচ্চিত্রের জন্য তিনি শ্রেষ্ঠ গীতিকার হিসাবে জাতীয় চলচ্চিত্র ও বাংলাদেশ প্রযোজক সমিতির পুরষ্কার লাভ করেন। ১৯৮৪ সালের ২৩ শে নভেম্বর নজরুল ইসলাম বাবু সংগীতপ্রিয় শাহীন আক্তারকে বিয়ে করেন। তাঁদের দুটি কন্যা সন্তান- নাজিয়া ও নাফিয়া।

১৯৯০ সালের ১৪ ই সেপ্টেম্বর অকালে ইন্তেকাল করেন বাংলা গানের এই মেধাবী ও অসাধারন গীতিকার নজরুল ইসলাম বাবু।

নজরুল ইসলাম বাবুর মতো এমন অসাধারন একজন গীতিকার সম্পর্কে আমাদের তথ্য ভাণ্ডারে কিছুই নেই যা আমাদের দৈনতার চরম উদাহরণ ছাড়া কিছুই নয়।

নতুন প্রজন্মকে আমরা আজও এমন একজন গীতিকার সম্পর্কে জানাতে পারেনি অথচ তাঁর লিখা গান আজও দেশসেরা কণ্ঠগুলো গেয়ে থাকেন । বিজয়ের এই মাসে বাংলা গানের এই অমর গীতিকারকে জানাই বিনম্র শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা।

নিচে গীতিকার নজরুল ইসলাম বাবু’র লিখা উল্লেখযোগ্য কিছু গানের তালিকা ও লিঙ্ক দেয়া হলো:

সব কটা জানালা খুলে দাও নাhttps://app.box.com/s/y5zlre8vtxd75itv7c0f

একটি বাংলাদেশ তুমি জাগ্রত জনতার  https://www.youtube.com/watch?v=VWbF4IIDwm8

আমায় গেঁথে দাওনা মাগো – https://www.youtube.com/watch?v=cJS5vBy6U7A

সুখে থাকো ও আমার নন্দিনী – https://app.box.com/s/08tpoocaf8i3q8gncg42

দুই ভুবনের দুই বাসিন্দা – https://app.box.com/s/v1j3nsjb4h2eqt62dp58

আমার গরুর গাড়ীতে বউ সাজিয়ে – https://www.youtube.com/watch?v=YJhy-aignW4

কথা বলবো না, বলেছি – https://www.youtube.com/watch?v=hNodPvKHcvU

পৃথিবীতে প্রেম বলে কিছু নেই / হাজার মনের কাছে – https://www.youtube.com/watch?v=zBoNAep1Wns

আমার এ দুটি চোখ – https://www.youtube.com/watch?v=_xiHVWWmZi4

ডাকে পাখী খোলো আঁখি – https://app.box.com/s/bcd0c937c64f56435fdb

এই অন্তরে তুমি ছাড়া নেই কারো – https://app.box.com/s/0403he34v1d1vxx4hjjlsu7c5kuaezbw

কত যে তোমাকে বেসেছি ভালো – https://www.youtube.com/watch?v=KLZwe8R4qoc

আমার মনের আকাশে আজ জ্বলে শুকতারা – https://www.youtube.com/watch?v=eaA6bMZ4-CE

তোমার হয়ে গেছি আমি – https://app.box.com/s/nvqo05ptn3mahccz3m7e0mmgrnlnb624

কাল সারারাত ছিলো স্বপ্নের রাত – https://app.box.com/s/vbntlop4qfg3tbsr54196mc7lpki0t6b

কাঠ পুড়লে কয়লা হয় – https://www.youtube.com/watch?v=WxHPUbkZgMg

[১৯৯১ সালে চাষী নজরুল ইসলাম পরিচালিত শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র ‘পদ্মা মেঘনা যমুনা’’ চলচ্চিত্রের এই গানটির জন্য গীতিকার নজরুল ইসলাম বাবু, সুরকার খন্দকার নুরুল আলম ও কণ্ঠশিল্পী অ্যান্ড্রু কিশোর তিনজনেই জাতীয় পুরস্কার অর্জন করেছিলেন]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *