আফগানিস্তানে ভূমিকম্পে মৃতের সংখ্যা বেড়ে এক হাজার

:: নাগরিক ডট নিউজ ::

আফগানিস্তানের দক্ষিণপূর্বাঞ্চলে হওয়া ভূমিকম্পে নিহতের সংখ্যা এক হাজার ছাড়িয়েছে। আহত হয়েছেন এক হাজার ৫০০ মানুষ।

পাকিস্তানের আবহাওয়া বিভাগ জানায়, ভূমিকম্পের কেন্দ্র ছিল আফগানিস্তানের পাকতিকা প্রদেশ। যা খোস্ত শহরের ৫০ কিলোমিটার (৩১ মাইল) দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে অবস্থিত। 

ভূমিকম্পে খোস্ত প্রদেশের বেশ কিছু ভবনও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

আফগানিস্তানের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ খোস্তের রাজধানী শহর খোস্ত থেকে আনুমানিক ৪৪ কিলোমিটার দূরে ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল বলে জানিয়েছে মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা (ইউএসজিএস)। ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল ৬ দশমিক ১। মাটির ৫২ কিলোমিটার গভীরে ছিল এর উৎপত্তিস্থল।

ইউরোপিয়ান মেডিটেরিয়ান সিসমোলোজিক্যাল সেন্টার জানিয়েছে, ভূমিকম্পের প্রভাব আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুল এবং পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাবাদেও অনুভূত হয়েছে।

এদিকে রাষ্ট্রপতির প্রাসাদে দেশটির প্রধানমন্ত্রী মোহাম্মদ হাসান আখুন্দ ত্রাণ কার্যক্রমের সমন্বয়ের জন্য এক জরুরি সভায় অংশ নিয়েছেন।

তালেবান সরকারের উপমুখপাত্র বিলাল কারিমি সাহায্য সংস্থাগুলোকে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় পাঠানোর আহ্বান জানান। 

তিনি বলেন, আমরা সব সাহায্য সংস্থাকে আহ্বান জানাচ্ছি, নতুন বিপর্যয় ঠেকাতে দয়া করে আপনারা ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় লোকজন পাঠান।

আফগানিস্তানে জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়কারী রমিজ আলাকবারভ বলেছেন, আরও সাহায্য সংগ্রহ করা হচ্ছে।

আফগানিস্তানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা সালাউদ্দিন আইয়ুবি বলেন, পাহাড়ি এলাকাগুলো থেকে হতাহতের প্রকৃত তথ্য পেতে সময় লাগবে। পূর্ণাঙ্গ তথ্য পেলে মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। বিধ্বস্ত এলাকাগুলোয় উদ্ধারকাজে হেলিকপ্টার মোতায়েন করা হয়েছে। তালেবান সরকারের পক্ষ থেকে জরুরি ভিত্তিতে চিকিৎসাসরঞ্জাম ও খাবার পাঠানো হয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও আফগান সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত ছবি–ভিডিওতে ভূমিকম্পে ব্যাপক ধ্বংসযজ্ঞ, ধ্বংসস্তূপে পরিণত হওয়া বাড়িঘর ও স্ট্রেচারে আহত ব্যক্তিদের নিয়ে ছোটাছুটি করতে দেখা যায়।

২০০২ সালের পর আফগানিস্তানে এটাই সবচেয়ে প্রাণঘাতী ভূমিকম্প। ওই বছর ২৫ মার্চ ৬ দশমিক ১ মাত্রার ভূমিকম্পে হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছিল।

এই ভূমিকম্পে আফগানিস্তান ছাড়া পাকিস্তান ও ভারতের ৫০০ কিলোমিটারের বেশি এলাকা কেঁপে উঠেছে বলে ইউরোপের ভূমধ্যসাগরীয় ভূমিকম্পকেন্দ্র জানিয়েছে। আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুল ও পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাবাদে ভূমিকম্পন অনুভূত হওয়ার কথা জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা।

আফগানিস্তান খুবই ভূমিকম্পপ্রবণ একটি দেশ। জাতিসংঘের তথ্যমতে, গত ১০ বছরে দেশটিতে ভূমিকম্পে সাত হাজারের বেশি মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। ভূমিকম্পে প্রতি বছর আফগানিস্তানে গড়ে ৫৬০ জন মারা যান।

Leave a Reply

Your email address will not be published.