ডেঙ্গুতে একদিনে ১৬৫ জন আক্রান্ত

:: নাগরিক প্রতিবেদন ::

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৬৫ জন রোগী দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। যা চলতি বছরে একদিনে সর্বোচ্চ। আক্রান্তদের মধ্যে রাজধানীর হাসপাতালেই ভর্তি হয়েছেন ১২৫ জন এবং ঢাকার বাইরের হাসপাতালে ভর্তি হন ৪০ জন। তবে এই সময়ে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে কারো মৃত্যু হয়নি।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম থেকে পাঠানো ডেঙ্গু বিষয়ক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়।

মঙ্গলবার ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছিলেন ১৫৩। আর সোমবার ১৩৯ জন এবং রোববার ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হন ১৩৫ জন। এই নিয়ে চলতি মাসের ২৪ দিনে ডেঙ্গুতে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ২৭৭ জন। এছাড়া চলতি বছরে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ১৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, বর্তমানে দেশের সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে সর্বমোট ৫২১ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি রয়েছেন। এর মধ্যে ঢাকার ৪৭টি সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে মোট ভর্তি রোগীর সংখ্যা ৪৩৭ জন। তাদের মধ্যে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে রাজধানীর মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আছেন ৫৪ জন। এর পরেই ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৪৬ জন, বাংলাদেশ শিশু হাসপাতাল ও ইনস্টিটিউটে ২৭ জন, স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (মিটফোর্ড হাসপাতাল) ২৫ জন, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি আছেন ২৩ জন, সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ২০ জন, কুয়েত বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসপাতালে ১৫ জন, শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১০ জন এবং বিজিবি হাসপাতালে (পিলখানা) ৪ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি রয়েছেন। এছাড়া দেশের অন্যান্য বিভাগে ভর্তি রয়েছেন ৮৬ জন।

অধিদফতরের তথ্যমতে, চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ২৪ আগস্ট পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা সর্বমোট ৪ হাজার ৯৩৭ জন। এর মধ্যে ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৪ হাজার ৮৯ জন এবং ঢাকার বাইরের হাসপাতালে ভর্তি হন ৮৪৮ জন। আর চলতি বছরে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন ৪ হাজার ৩৯৭ জন ডেঙ্গু রোগী।

সর্বমোট ডেঙ্গু আক্রান্তদের মধ্যে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন ৪ হাজার ৩৯৭ জন। তাদের মধ্যে ঢাকায় সর্বমোট ছাড়প্রাপ্ত রোগীর সংখ্যা ৩ হাজার ৬৪৩ জন এবং ঢাকার বাইরে সর্বমোট ছাড়প্রাপ্ত রোগী ৭৫৪ জন। এ বছর এখন পর্যন্ত ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ১৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।

২০১৯ সালে ডেঙ্গুর প্রকোপ মারাত্মক আকার ধারণ করে। ওই বছর এক লাখের বেশি মানুষ ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। মারা যান ১৪৮ জন। করোনা মহামারির মধ্যে ২০২০ সালে ডেঙ্গু তেমন প্রভাব ফেলতে পারেনি। তবে ২০২১ সালের মাঝামাঝি সময়ে কিছুটা উদ্বেগজনক পরিস্থিতি তৈরি করে ডেঙ্গু।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, চলতি মাসের ২৪ দিনে ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছে ২ হাজার ২৭৭ জন। আর জুলাই মাসের ৩১ দিনে মোট রোগী শনাক্ত হয়েছিল ১ হাজার ৫৭১ জন। গত মে মাসের ৩১ দিনে মোট রোগী শনাক্ত ও ভর্তি হয়েছিল ১৬৩ জন। জুনের ৩০ দিনে ছিল ৭৩৭ জন। আর এ বছর ডেঙ্গুতে মোট মৃত্যু হয়েছে ১৯ জনের। এদের মধ্যে জুনে একজন, জুলাইতে ৯ জন ও আগস্টের ২৩ দিনে ৯ জন। 

কীটতত্ত্ববিদেরা জানান, তাঁদের আগেই ধারণা ছিল আগস্ট-সেপ্টেম্বরে ডেঙ্গু সর্বোচ্চ চূড়ায় উঠবে। দেশে চলতি মাসে প্রতিদিন গড়ে প্রায় ৯৫ জনের মতো রোগী শনাক্ত হচ্ছে। এ জন্য দ্রুত পদক্ষেপ নিতে হবে সরকারকে। যেসব এলাকায় ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বেশি সেখানে সাঁড়াশি অভিযান চালিয়ে দ্রুত মশা মারতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *