ঢাবিতে ছাত্রলীগের হামলায় আহত ৬

:: নাগরিক প্রতিবেদন ::

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করেছেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এর মধ্যে রক্তাক্ত ২ জনকে হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে ছাত্রদল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তি ও গণতন্ত্র তোরন দিয়ে প্রবেশের সময় অতর্কিত হামলা চালায় ছাত্রলীগ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, উপাচার্যের কার্যালয়ের উদ্দেশ্যে ছাত্রদল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশের সময় নীলক্ষেত মোড়ে আসার খবর শুনেই অবস্থান নেয় ছাত্রলীগ। এ সময় নীলক্ষেত মোড় দিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রবেশের মুহুর্তে স্যার এ এফ রহমান হলের ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা হামলা চালায়। হামলায় স্যার এ এফ রহমান হলের সভাপতি রিয়াজুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মুনিম শাহরিয়ার মুনের নেতৃত্বে হলের ছাত্রলীগকর্মী মেহেদি হাসান, মহিবুল্লাহ লিয়ন, আলী হাসান রিফাত, সামি, হৃদয়, তানভীর হাসান শান্ত, আসিফ, মোমিন, শওকত, মেহেদি হাসান শান্ত, আলভী এই হামলায় অগ্রভাবে অবস্থান করেন বলে জানা গেছে।

এ বিষয়ে ছাত্রদলের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সভাপতি খোরশেদ আলম সোহেল বলেন, আমাদের অন্তত চারজন গুরুত্বর আহত হয়েছে।

হামলার পর ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের স্লোগান দেখা যায়। ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের ‘ছাত্রদলের চামড়া তুলে নিবো আমরা’, ‘জামাত শিবির রাজাকার, এই মুহুর্তে বাংলা ছাড়’, ‘ছাত্রদলের আস্তানা, এই ঢাবিতে হবেনা’; ‘হই হই রই রই, ছাত্রদল গেলি কই’ স্লোগান দিতে শোনা যায়।

গতকাল সোমবার সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে প্রবেশ করার কথা ছিল ছাত্রদলের নবগঠিত কমিটির। খবর পেয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন স্থানে অবস্থান নেন ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। পরে ছাত্রদল তাদের ক্যাম্পাসে আসার সিদ্ধান্ত স্থগিত করে।

মঙ্গলবার ঢাবি ক্যাম্পাসে প্রবেশের প্রস্তুতি নেয় ছাত্রদল। এদিন বিকেল ৪টায় ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকসহ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন কমিটির নেতারা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের সঙ্গে দেখা করার কথা ছিল। দুদিন আগেই তারা ভিসির কাছ থেকে সময় নেন।

বিপরীতে ক্যাম্পাসে নিজেদের অবস্থান জানান দিতে ছাত্রলীগও অটল। মঙ্গলবার ঢাবি ক্যাম্পাসে ছাত্রদল প্রবেশ করলে তাতে দুই ছাত্র সংঘটনের মধ্যে সংঘর্ষ হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *