লটারিতে প্রায় ৫০ কোটি টাকা জিতলেন বাংলাদেশি

:: নাগরিক নিউজ ডেস্ক ::

সংযুক্ত আরব আমিরাতে ‘মাইটি ২০ মিলিয়ন’ লটারিতে ২ কোটি দিরহাম জিতেছেন শারজায় বসবাসকারী বাংলাদেশি আরিফ খান। যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ৫০ কোটি।

আরিফ খান নামে ওই যুবক বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার বাসিন্দা। চার বছর ধরে তিনি আমিরাতের শারজাহ শহরে ব্যবসা করছেন। সেখানে একটি গাড়ির ওয়ার্কশপ চালান আরিফ।

বাংলাদেশি এ যুবক জানান, গত ২৭ মে বিগ টিকিট আবুধাবির ‘মাইটি ২০ মিলিয়ন’ র‌্যাফেল ড্রয়ের একটি টিকিটি কেনেন তিনি। আরিফ বলেন, আমি আগে কোনোদিন টিকিট কিনিনি। এক বছর আগে থেকে কেনা শুরু করেছি। সবসময় একা একাই টিকিট কিনতাম। আমি আমার ভাগ্য পরীক্ষা করছিলাম।

স্থানীয় সময় শুক্রবার আবুধাবি এয়ারপোর্টের প্রমোশনাল লটারি ‘দ্য বিগ টিকেট’ র‌্যাফেল ড্র- এর পর শীর্ষ পুরস্কারটি পান আরিফ খান, যার পৈতৃক বাড়ি বাংলাদেশের ঢাকায়।

৩৬ বছর বয়সী আরিফ খান পুরস্কার পাওয়ার পর প্রতিক্রিয়ায় বলেন, “যখন আমার নামে কেনা টিকেটের নম্বর ১৪৪৪৮১ মেগা ড্র জিতলো, তখন আমি তা শুনে বিশ্বাসই করতে পারছিলাম না।”

এসময় আমিরাতের দুই কোটি দিরহামে বাংলাদেশি মুদ্রায় কত টাকা হয় জানতে চাইলে গুনে বের করার চেষ্টা করেন আরিফ, কিন্তু অংক মেলাতে না পেরে একপর্যায়ে হাল ছেড়ে দেন।

তিনি বলেন, আমি জানি না। সত্যি বলতে, আমি যে দুই কোটি দিরহাম জিতেছি, তা এখনো বিশ্বাস হচ্ছে না। মাত্র আধা ঘণ্টা বা তার কিছু বেশি সময় আমি এই সংখ্যাটা শুনতে শুরু করেছি: ‘দুই কোটি দিরহাম’।

শারজাহতে আরিফ খানের একটি গাড়ি মেরামতের কারখানা রয়েছে। সেখান থেকে ২০২১ সাল থেকে প্রতিমাসে আবুধাবি এসে এই লটারির টিকেট কিনতেন তিনি।

আরিফ খান জানান, সৌদি আরবে তিনি দীর্ঘ ১২ বছর ছিলেন। সেখানে ব্যবসায় লোকসান হওয়ায় চার বছর হলো শারজায় নতুন করে সব শুরু করেছেন।

বিশাল এই অর্থপুরস্কার দিয়ে ভবিষ্যতে কী করবেন, তা এখনো ঠিক করেননি আরিফ খান। তবে এই অর্থ দিয়ে অভাবীদের সাহায্য করার ইচ্ছা রয়েছে তার।

আরিফ বলেন, আমার দুই সন্তান, স্ত্রী ও বাবা-মা রয়েছে। আমার ভাইও এখানে একটি দোকান চালায়। আমরা সুখি পরিবার। আমি আশা করি, এই অর্থ অন্যদের সাহায্যে কাজে আসবে।

তার কথায়, টাকা পৃথিবীর সবচেয়ে ভয়ঙ্কর জিনিস। তাই আমি চাই না, এটি আমাকে বদলে দিক। এই অর্থ আমি অন্যদের সাহায্যে কাজে লাগাতে চাই।

প্রায় তিন দশক আগে ১৯৯২ সালে আবুধাবি এয়ারপোর্ট ও শহরের প্রমোশনের জন্য বিগ টিকেট লটারি চালু করা হয়। প্রতিমাসে এই লটারির ড্র অনুষ্ঠিত হয়। শুরুতে প্রথম স্থানের জন্য পুরস্কারের মূল্যমান ছিল ১০ লাখ দিরহাম। ধীরে ধীরে এ পুরস্কারের পরিমাণ বাড়তে বাড়তে ২০ লাখ দিরহামে ঠেকেছে।

মে মাসের লটারিতে জেতা দ্বিতীয় স্থান, তৃতীয় এবং চতুর্থ স্থান অধিকারীরা ভারতীয় নাগরিক। তারা পেয়েছেন যথাক্রমে ১০ লাখ, ১ লাখ এবং ৫০ হাজার দিরহাম।   

এছাড়া বিগ টিকেট লটারির আরেকটি আকর্ষণ হচ্ছে ‘ড্রিম কার’ জেতার সুযোগ। যেটির ড্র প্রতি দুইমাসে একবার অনুষ্ঠিত হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.